সোমবার | ১৮ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২রা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১২ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি | বিকাল ৪:১৫
Home / প্রচ্ছদ / ঢাবির ছাত্রলীগের দাবি, হামলা হয়েছে তাদের ওপরেই

ঢাবির ছাত্রলীগের দাবি, হামলা হয়েছে তাদের ওপরেই

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য আখতারুজ্জামানের কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচিতে নির্যাতনবিরোধী সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে কর্মসূচিতে হামলার ঘটনায় সমালোচনার মুখে থাকা ছাত্রলীগ দাবি করেছে, সেখানে হামলা হয়েছে তাদের ওপরই।

ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনটির দাবি, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য মহোদয়কে অবরুদ্ধ ও তাকে লাঞ্ছনা করে বহিরাগত বাম সন্ত্রাসীরা। এখবর সাধারণ শিক্ষার্থীদের কানে পৌঁছালে তারা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাথে একত্রিত হয়ে মাননীয় উপাচার্য মহোদয়কে উদ্ধার করে।’

গত ১৫ জানুয়ারি সরকারি সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে কর্মসূচি পালন করছিল শিক্ষার্থীরা। সেই কর্মসূচিতে মেয়েদেরকে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা কটূক্তি এবং যৌন হয়রানি করেছেন অভিযোগ তরে তাদের বহিষ্কারের দাবিতে সোচ্চার হয় নির্যাতনবিরোধী সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যাপারে বামপন্থী ছাত্র সংগঠনের শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১২টার দিকে উপাচার্য আখতারুজ্জামানের কার্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভকারীরা। বেলা সোয়া তিনটার দিকে উপাচার্য বের হয়ে অ্যাকাডেমিক বৈঠকে যোগ দিতে কার্যালয়ে যেতে চাইলে তাকে ঘিরে ধরে বিক্ষোভকারীরা। এ সময় একজন তাকে ঘুষি দেন।

এরপর ঘটনাস্থলে আসে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। তারা বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে হাতাহাতি করে উপাচার্যকে তার কক্ষে নিয়ে যান। আর বিকাল চারটার পর ছাত্রলীগের আরও একটি বড় মিছিল আসে সেখানে। এ সময় বড় দিয়ে বেদম পেটানো হয় বিক্ষোভকারীদের।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইমরান হাবিব রুমন এবং সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন প্রিন্স এক বিবৃতিতে শতাধিক নেতা-কর্মী আহতের অভিযোগ করেছেন।

তবে ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শাহজাদা রাতে পাল্টা বিবৃতিতে দাবি করেছেন, হামলা হয়েছে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের ওপরই।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘বাম সংগঠনের নেতা কর্মীরা ন্যাক্কারজনকভাবে সাধারণ শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। মেয়েদেও সাথে অশালীন আচরণ করে। ফলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে বহিরাগত বাম সন্ত্রাসীদের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।’

‘যেন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার মান নষ্ট না হয় সে জন্য ছাত্রলীগ দুই পক্ষকেই নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। কিন্তু এতে বাম সংগঠনের সন্ত্রাসী ক্ষিপ্ত হয়ে ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের উপর হামলা করে।’

বামপন্থীদের হামলায় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি নিশীতা ইকবাল নদী, বাংলাদেশ কুয়েত-মৈত্রী হলের সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী শায়লা, বাংলাদেশ কুয়েত-মৈত্রী হলের সভাপতি ফরিদা ইসলাম, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুননেসা মুজিব হলের সভাপতি বেনজির হোসেন নিশি, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুননেসা মুজিব হলের রনক জাহান রাইন, বেগম রোকেয়া হলের সভাপতি বি এম লিপি আক্তার ও বেগম রোকেয়া হলের সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী ইসলাম, শামসুননাহার হলের সভাপতি নিপু ইসলাম তন্বী, শামসুননাহার হলের সাধারণ সম্পাদক জিয়াস ইসলাম শান্তা, ইশরাত জাহান তন্বী, জেরিন দিয়া, বিষিকা দাসসহ অনেকে আহত হন বলেও দাবি করা হয় বিবৃতিতে।

আহতরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে জানিয়ে ছাত্রলীগ ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা বাম ‘সন্ত্রাসীদের’ শাস্তির দাবি জানিয়েছে বলেও উল্লেখ করা হয় বিবৃতিতে।

হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে পাঁচ দফা দাবিও জানায় ছাত্রলীগ।

এগুলো হলো: ১. উপাচার্যের উপর হামলাকারী, লাঞ্ছনাকারী এবং উপাচার্যের কার্যালয় ভাংচুরকারীদের দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তি এবং বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অবিলম্বে বহিষ্কার।

২. সাধারণ শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগের উপর ‘হামলাকারী’ ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দী, তানভীর আহমেদ মুঈন, বেনজীর, তুহিন কান্তি, সাদিক রেজা, তমা, সুদীপ্ত, সালমান, ইভা, তমা শাকিল, ইরা, সোহেল রিফাত, সিদ্দীকী, জামিল, মিথিলাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কার ও গ্রেপ্তার।

৩. প্রক্টর অফিস ভাঙচুরকারী এবং প্রক্টর অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের উপর হামলাকারীদের বহিষ্কার।

৪. বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ক্যামেরা ভাঙচুরকারী এবং ক্যামেরাম্যান ও উপাচার্য অফিসের কর্মচারী উপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা।

৫. বিশ্ববিদ্যালয়েল শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশকে যারা নষ্ট করতে চায় তাদেরকে অবিলম্বে শাস্তির আওতায় আনা।

ছাত্রলীগের ওপর হামলায় বহিরাগত, ছাত্রদল, শিবির: জাকির

এদিকে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন দাবি করেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের ওপর হামলায় বামপন্থী ছাত্র সংগঠনগুলোর পাশাপাশি বিএনপির ছাত্র সংগঠন ছাত্রদল এবং জামায়াতের ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্র শিবিরও অংশ নিয়েছে।

জাকির বলেন, ‘সাধারণ শিক্ষার্থী সহ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উপর হামলাকারী বাম, ছাত্রদল ও শিবিরের সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও বিচার দাবি করছি।’

হামলায় ছাত্রলীগের বহু ‘বোন’ আহত হয়েছে অভিযোগ করে জাকির বলেন, ‘আমার বোনের উপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রাণের দাবি।’

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

টঙ্গীতে শাওন সরকারের ব্যক্তিগত উদ্যোগে সাংবাদিকদের মাঝে ব্যতিক্রম ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ

শেখ কামরুল হাসান সাহা!! জাতীয় দৈনিক “দৈনিক হক ইনসাফ” পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক, ...