মঙ্গলবার | ২৬শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২০শে রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি | সন্ধ্যা ৬:২৯
Home / সারাদেশ / ঢাকা বিভাগ / পরিপত্র জারি, প্রয়োজনে সেনাবাহিনী

পরিপত্র জারি, প্রয়োজনে সেনাবাহিনী

 মোঃ মাহমুদ হাসান প্রতিনিধিঃ ঢাকা দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কমিশনকে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারে কারিগরি সহায়তা দেবে সশস্ত্র বাহিনীর পাঁচ হাজারের বেশি সদস্য। কিন্তু ইভিএম পরিচালনায় দায়িত্বরত নিরস্ত্র সেনা সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে সশস্ত্র বাহিনী সবধরণের পদক্ষেপ নিতে পারবে। এক্ষেত্রে সেনাক্যাম্প স্থাপন অথবা প্রশাসনিক সুবিধাদানকারী ডিভিশনের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাবে।

বৃহষ্পতিবার (৩০ জানুয়ারী) ইভিএম বিষয়ক এক বিশেষ পরিপত্র জারি করে এমন নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। যদিও নির্বাচন কমিশন (ইসি) আগেও বলেছে, ভোটের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন থাকবে না। ভোটে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও টহল কাজে নিয়োজিত থাকবে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, কোস্টগার্ড ও আনসার। ইসির উপ-সচিব আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত পরিপত্রের ১৭ ধারায় বলা হয়েছে, ভোট গ্রহণের দিন কেন্দ্রে অবস্থানরত কারিগরি সহায়তা দেওয়া সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা নিরস্ত্র থাকবেন। রিটার্নিং অফিসার/সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও ক্ষেত্রমতে প্রিজাইডিং অফিসার, ভোটকেন্দ্রে অবস্থানকারী আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও টহল কাজে নিয়োজিত পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবির সহায়তায় উক্ত সশস্ত্র বাহিনীর কারিগরি সদস্যদের যাবতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন। পরিপত্রে আরো বলা আছে-আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের জন্য সশস্ত্র বাহিনীর কারিগরি সদস্যরা মোবাইল ফোন বহন করতে পারবেন। উল্লিখিত ব্যবস্থা ছাড়াও যে কোনো প্রকার অনাকাঙ্খিত ঘটনা প্রতিরোধ এবং তাদের নিরাপত্তা বিধানকল্পে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা সবশেষ পন্থা হিসেবে সেনাক্যাম্প স্থাপন করে অথবা প্রশাসনিক সুবিধাদানকারী ডিভিশনের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করে নিরাপত্তা নিশ্চিত সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নিতে পারবেন। গতকাল পরিপত্রটি দুই সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। যার অনুলিপি দেওয়া হয়েছে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/বিভাগের সিনিয়র সচিবকেও। উল্লেখ্য, গত ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিলের ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে তিন ব্যাটালিয়ন সেনা ভোটের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন করা হয়েছিল। তবে তারা ক্যান্টনমেন্টেই প্রস্তুত অবস্থায় ছিলেন। সে নির্বাচনে কোনো অনাকাঙ্খিত ঘটনা না ঘটায় ক্যান্টনমেন্ট থেকে ভোটের মাঠে নামতে হয়নি সেনা সদস্যদের।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

কারাগারে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে ইরফানকে

অনলাইন ডেস্ক :  র‌্যাবের অভিযানে মাদক ও অবৈধ ওয়াকিটকি রাখা ও ব্যবহারের ...