শুক্রবার | ২২শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৬ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি | সকাল ৮:০০
Home / অপরাধ / টক্কা বাবা আনসার আলী, মাদক ব্যবসার কারবারি………

টক্কা বাবা আনসার আলী, মাদক ব্যবসার কারবারি………

মোঃ মুজাহিদুল ইসলামঃ রাজধানী ঢাকার প্রাণকেন্দ্র উত্তরার সুইচ গেট সংলগ্ন বিশ্ব ইজতেমার মাঠ ঘেষা তুরাগ নদীর তীরে দক্ষিণ পাশে তাকালে চোখে পড়বে বাঁশের মাথায় পণপণ করে উড়ছে লাল নিশানা। চারিধারে পলিথিন দিয়ে ঘেরা তার ভিতর দুইটি ঘর, পাশে প্রশস্ত খোলা জায়গা আর এখানেই আস্তানা গেঁড়ে বসেছেন আনসার আলী। ভক্তরা যাকে ভালোবেসে টক্কা বাবা বলে সম্বোধন করে থাকে সেই আনসার আলী ওরফে টক্কা বাবার আস্তানা এটি। ভিতরে প্রবেশ করলেই দেখা যাবে টক্কার স্ত্রী, মেয়ে ও একাধিক মাদক সেবনকারীর মাদক সেবনের দৃশ্য। যারা গাঁজা সেবন করে এবং টক্কা বাবাকে ভালোবাসে তারাই আসে টক্কা বাবার আস্তানায়। তুরাগ নদী দিয়ে নৌকাযোগে মাঝরাতে টক্কা বাবার আস্তানায় মাদক পৌঁছে যায়।
স্থানীয় পর্যায়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কিছুদিন পূর্বে পানি উন্নয়ন বোর্ড তুরাগ তীর লাগোয়া সব অবৈধ বেদখল উচ্ছেদ করলে টক্কার মাদক আস্তানাও উচ্ছেদ করা হয়। কিন্তু পরবর্তীতে একটু সরতে গিয়ে কিছুদিন পর আবারও আস্তানা গেঁড়ে বসে টক্কা। বিশ্ব ইজতেমা মাঠ সংলগ্ন হওয়ায় কিছুদিন পূর্বে বিশ্ব ইজতেমা শুরু হলে ইজতেমায় আগত মুসুল্লিরা গাঁজার গন্ধ পেয়ে আনসার আলী টক্কার আস্তানা গুড়িয়ে দেন। কিছুদিনের জন্য একটু দূরে সরে গেলেও ইজতেমা শেষ হওয়ার পরপরই আবারও আস্তানা গেঁড়ে বসে আনসার আলী ওরফে টক্কা।

টক্কার আস্তানায় কি দিন, কি রাত ২৪ ঘন্টাই চলে গাঁজা সেবন। টক্কার কাছে সবসময়ই মজুদ থাকে পর্যাপ্ত পরিমাণ গাঁজা। এতো পরিমাণ গাঁজা টক্কার কাছে কোথা হতে আসে বা সে কোথায় এতো গাঁজা পায় সেটা টক্কাই ভালো জানে।
টক্কার আস্তানায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এখানে এমনও গাঁজা সেবনকারী আছে যারা তাদের সংসার ধর্ম, পরিবার-পরিজন ছেড়ে শুধুমাত্র টক্কাকে ও গাজাকে ভালোবেসে এখানে পড়ে আছে।
আনসার আলী টক্কার সম্পর্কে জানা যায়, এই টক্কা তার আস্তানায় এমন ভাব করে বসে থাকেন যে, তিনি নিজেকে সবার কাছে প্রকাশ করতে চান যে, সে একজন আধ্যাত্মিক সাধক। কথায় কথায় হাতে থাকা লাঠি দিয়ে নিজের মাথায় আঘাত করা তার নিজেকে একজন আধ্যাত্মিক সাধক বহিঃপ্রকাশ করার কৌশল। এই আনসার আলী টক্কা গাঁজা সেবন করতে করতে তার সব দাঁত পড়ে গেছে, চুলও পড়ে যাচ্ছে। তার মুখ থেকে সারাক্ষণ গাঁজার দুর্গন্ধ আসে।
রাস্তার নিকটবর্তী হওয়ার কারণে প্রতিনিয়ত টক্কার আস্তানায় আসছে অসংখ্য যুব গাঁজা সেবনকারী। পরিবহণ সেক্টরের অনেকেও প্রতিনিয়তই যাচ্ছে টক্কার গাঁজার আস্তানায়। এতে করে যুব সমাজ মাদকাসক্ত হয়ে যাচ্ছে , আর তাতেই বাড়ছে পারিবারিক ও সামাজিক কলহ।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সিলেটে গৃহবধু গণধর্ষণ মামলার ছয় নম্বর আসামি মাহফুজুর গ্রেফতার

সিলেট প্রতিনিধি : সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গৃহবধু গণধর্ষণ মামলার ছয় নম্বর ...