রবিবার | ১৬ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি | ভোর ৫:১৭
Home / আন্তর্জাতিক / রোবট দেখে দেখে ক্লান্ত চীন বাসী

রোবট দেখে দেখে ক্লান্ত চীন বাসী

পর্দার আড়ালে ২৪.কম নিউজ ডেস্ক!!
কল্পবিজ্ঞানের কোনও যন্ত্র দেশে যেনো আটকে পড়েছেন। জনমানবের দেখা নেই। সময় চলছে অতি মন্থরগতিতে। দু-একবার বন্ধ দরজার সামনে এসে বিদঘুটে নলের মতো তিন ফুটের রোবট এসে ফোন করছে “সার্ভিস রোবট”, আপনার অর্ডার নিয়ে।
দরজা খুললে রোবটের পেটের ডালা খুলে যায়। হাত বাড়িয়ে নিতে হয় পানির বোতল বা খাবার। বেইজিংয়ে স্বাভাবিক জনজীবন ফিরছে, খুলেছে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানও, তবে কোয়ারেন্টিনে বা আইসোলেশন মানে এখনও এমনটাই। বিদেশ থেকে কিংবা সংক্রমণের আঁতুড়ঘর হুবেই প্রদেশ থেকে এসেছেন যারা বেইজিংয়ে তাদের দিন কাটছে এ ভাবেই।

বহুতলের প্রতি তলায় এক জন শুধু টেবিল পেতে বসে। লিফটে উপর-নীচে ঘোরাঘুরি ও সব কাজই করছে রোবট। দিনে এক বার নভশ্চরদের মতো হ্যাজ়মাট পরে ডাক্তার এসে দেখেন। পইপই করে বলে যান, বেরোবন না। পরিজন কেউ খাবার দিতে এলে নীচতলায় ডেস্কের পাশে রেখে দেন। কোনও কর্মী তা রেখে আসেন ঘরের দরজায়। তিনি সরে গেলে তুলে নিতে হয় তা। কোথাও আবার বাছবিচারের পছন্দের বালাই নেই। যা দিচ্ছে, খেতে হচ্ছে।

দিনের পর দিন মানুষের মুখ না-দেখে হাঁপিয়ে উঠেছেন সকলে। সংবাদমাধ্যমের কর্মী বছর পঁচিশের সিয়ে চুং উহান থেকে ফিরে ইস্তক আইসোলেশনে বললেন, তিন সপ্তাহ ধরে এক জন মানুষেরও মুখ দেখিনি। মনে হচ্ছে, সময়টা চলছে যেন খুবই ধীর গতিতে। উহান ফেরত জার্মান সাংবাদিক ফ্রেডারিকো ভেগা দ্বিতীয় দফায় কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। এই মহিলার কথায়, দরজার সামনেই ক্যামেরা। রীতিমতো আতঙ্কের। মার্চের শেষে চীনে এসেই ঘরবন্দি হন ফরাসি শিক্ষিকা শার্লৎ পারো। গুয়াংজোয়ে ১০ বিছানার একটি ঘরে একা ছিলেন দু’সপ্তাহ। বাইরে থেকে কেউ দরজা বন্ধ করেনি বটে তবে বেরোতে সাহস পাননি। বেরোলেই যদি দুশমন চিহ্নিত হতে হয়! চীনের অন্যত্র যারা কোয়ারেন্টিনে তাদের বাড়ির দরজায় ইলেকট্রনিক অ্যালার্ম। দরজা খুললেই নিঃশব্দে বার্তা যাবে রক্ষীদের কাছে। প্রত্যেক বাড়িতে নোটিস টাঙ্গানো পাশের বাড়িতে নজর রাখুন। কেউ দরজা খুললেই খবর দিন।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ব্লিনকেনকে উইঘুদের বন্দি শিবির ও নির্যাতন বন্ধের আহ্বান

সম্প্রতি জিনজিয়াংয়ে উইঘুদের প্রতি চীনের অমানবিক আচরণ ও গণহত্যা বলে স্বীকৃতি দিয়েছে ...