রবিবার | ১৬ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৩ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি | ভোর ৫:১৮
Home / খেলাধুলা / সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বনাম নতুন অধিনায়ক তামিম এর ফেসবুক লাইভে আড্ডা

সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বনাম নতুন অধিনায়ক তামিম এর ফেসবুক লাইভে আড্ডা

শাওন মৃধা!!
করোনা পরিস্থিতিতে গৃহবন্দী সময় কাটানো তামিম সতীর্থদের সঙ্গে লাইভ আড্ডায় মেতেছেন বেশ কয়েকদিন ধরে। গতকাল (৪ মে) তার সঙ্গী ছিল সদ্য বিদায়ী অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তার জায়গাতেই বর্তমান অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন তামিম ইকবাল। তামিম ভাইয়ের সাথে যখন মাশরাফি ভাইয়ের প্রথম দেখা হয় তখন তামিম ভাই হাফ প্যান্ট পড়ত। নাফিস ইকবাল ভাইয়ের সাথে যখন তাদের বাড়িতে যায় যখন তামিম ভাইকে ম্যাশ ভাই হাফ প্যান্ট পড়ে খেলনা গাড়ি নিয়ে খেলতে দেখেন। আজকে সেই হাফ প্যান্ট পড়া ছেলেটা বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক। ফেসবুক লাইভে বিভিন্ন মজার গল্পের ফাঁকে তামিম তুলে ধরেন সেঞ্চুরির লোভ দেখিয়ে তার কাছ থেকে মাশরাফির ব্যাট নেওয়ার কাহিনী। মূলত মাশরাফিকে ব্যাট দিলেই তামিম রান করবে, সেঞ্চুরি করবে এমন স্বপ্ন দেখিয়েই ব্যাট নিতেন দেশের অন্যতম সফল অধিনায়ক মাশরাফি। কাকতালীয়ভাবে মাশরাফির কথামত ব্যাট দিয়ে সেঞ্চুরির দেখা পাওয়ার নজিরও আছে তামিমের। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে পরিসংখ্যান বিবেচনায় এখনো পর্যন্ত মাশরাফিই সফল অধিনায়ক। ৮৮ ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিয়ে জিতিয়েছেন ৫০ টিতে, বাংলাদেশের একমাত্র অধিনায়ক হিসেবে নির্দিষ্ট ফরম্যাটে ৫০ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড আছে কেবল তারই। আর রেকর্ডটি ছুঁয়েছেন চলতি বছর মার্চে সিলেটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে নিজের অধিনায়ক হিসেবে শেষ ম্যাচে। ২০১০ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ব্রিস্টলে অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফির প্রথম জয়। এরপর তার অধীনে এসেছে দেশের ক্রিকেটের মোড় ঘুরে যাওয়া অনেক জয়। বিশেষ করে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল, চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনাল, প্রথম কোন বহুজাতিক সিরিজের শিরোপা জয় অন্যতম। আছে ঘরের মাঠে ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকার মত শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিপক্ষে সিরিজ জয়। এতসব জয়ের ভীড়ে তামিম ইকবালের সাথে ফেসবুক লাইভ আড্ডায় মাশরাফি জানিয়েছেন তার প্রিয় তিন জয়ের কথা। মাশরাফির কাছে তার সেরা তিন জয় সম্পর্কে জানতে চেয়ে তামিম বলেন, ‘আপনার অধীনে আমরা ৫০ টি ওয়ানডে জিতেছি। এটা অবশ্যই অন্যতম একটা বড় মাইলফলক আমার মনে হয়। যা সত্যিই অসাধারণ। আপনি আপনার তিনটি জয়ের কথা বলেন যেগুলো আপনার হৃদয়ে ভালোভাবে জায়গা করে নিয়েছে।’ ২০১৫ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করা ম্যাচ সবার উপরে মাশরাফির কাছে। নিজের সেরা তিন জয় সম্পর্কে মাশরাফি বলেন, ‘ইংল্যান্ডের সাথে বিশ্বকাপে যেটাই আমরা কোয়ার্টার ফাইনাল খেললাম (২০১৫ বিশ্বকাপ)। তারপর বলতে হয় চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে (২০১৭) সাকিব-রিয়াদের সেঞ্চুরিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচটা অবিশ্বাস্য। ইংল্যান্ডের সাথে ঘরের মাঠে (২০১৬ মিরপুরে) দ্বিতীয় ম্যাচটা, তাসকিন তিনটা উইকেট পেল।’ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২০১৬ সালে ঘরের মাঠে পাওয়া জয়ে বড় ভূমিকা ছিল ম্যাচ সেরা মাশরাফির। ব্যাট হাতে শেষদিকে তার ২৯ বলে অপরাজিত ৪৪ রানের ইনিংস খেলার পাশাপাশি বল হাতেও ২৯ রান খরচায় নেন ৪ উইকেট। ২৩৯ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ইংল্যান্ড অলআউট ২০৪ রানে। ম্যাচে মাশরাফির অবদানের কথা মনে করিয়ে দিয়ে তামিম বলেন, ‘আপনি সে ম্যাচটায় শুরুতেই উইকেট নিয়েছেন ব্যাট হাতেও রান করেছেন।’ প্রত্যুত্তরে সেসময়কার টাইগার কোচ হাথুরে সিংয়ের একটি মন্তব্য মনে করিয়ে দিয়ে মাশরাফি বলেন, হাথুরাসিংহেতো আমাকে বলতো তুমি কখনোই ব্যাট হাতে রান করে ম্যাচ জেতাতে পারবেনা (হাসি)।’ সবশেষে মাশরাফি নতুন অধিনায়ক তামিম এর জন্যে শুভকামনা জানিয়ে বিদায় নেন।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আফগানিস্তানের ক্রিকেটার রশিদ খানের মায়ের ইন্তেকাল

মোঃ মামুন আহমেদ!! আফগানিস্তানের তারকা ক্রিকেটার রশিদ খানের মা আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ...