শনিবার | ২২শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৯শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি | ভোর ৫:২২
Home / আন্তর্জাতিক / অ্যামাজনে করোনা হাসপাতাল তৈরি করছে পেরু

অ্যামাজনে করোনা হাসপাতাল তৈরি করছে পেরু

পর্দার আড়ালে ২৪.কম নিউজ ডেস্ক!!
অ্যামাজনে স্থানীয় আদিবাসী সম্প্রদায়ের মধ্যে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯)। পরিস্থিতি মোকাবেলায় ওই অঞ্চলে করোনা হাসপাতাল তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে পেরু সরকার।

ব্রাজিলের অংশে থাকা অ্যামাজন বৃষ্টিবনানীর আদিবাসীরাও কোভিড-১৯ আক্রান্ত হচ্ছেন। অভিযোগ রয়েছে তারা পর্যাপ্ত চিকিৎসা পাচ্ছেন না।
পেরুর সামাজিক নিরাপত্তা সংস্থা এসসালুদ জানিয়েছে, ব্রাজিল সীমান্তের উকাচালি প্রদেশের রাজধানী পুকাইপায় ১০০ শয্যাবিশিষ্ট একটি হাসপাতাল তৈরি করা হবে। দ্রুত হাসপাতাল তৈরির জন্য জোরদমে কাজ শুরু হয়েছে। তিন সপ্তাহের মধ্যেই হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা শুরু করতে চাইছে পেরু সরকার।
করোনায় পেরুতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৯২ হাজার ২৭৩ জন এবং দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৬৪৮ জন।

অ্যামাজন বৃষ্টিবনানীর পেরুর অংশে (পেরুভিয়ান অ্যামাজন) ইতিমধ্যেই করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ আকার নিয়েছে। সেখানে লরেটো রিজিয়ানের ইকিতোস শহরের হাসপাতালগুলি কোভিড রোগীতে ভর্তি। নতুন করে রোগী ভর্তির কোনও সুযোগ নেই। স্থানীয় মর্গগুলিতে মৃতদেহের স্তূপ। পরিস্থিতি ভয়ংকর আকার নেওয়ায় সামাজিক সুরক্ষা সংস্থার মুখপাত্র জানিয়েছেন, পেরুভিয়ান অ্যামাজনে চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দিতে জোরদমে কাজ করছে প্রশাসন। সেখানে (২২০) জন স্বাস্থ্যকর্মীও পাঠানোর সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে।

অ্যামাজনের ওই অংশে সড়ক যোগাযোগ নেই। নদীই যাতায়াতের প্রধান মাধ্যম। অক্সিজেন-সহ সমস্ত ডাক্তারি সরঞ্জাম দ্রুত পৌঁছে দেওয়ার জন্য তাই আকাশপথ ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী গুস্তাভো জ়েবাইলেস। সেই জন্য লিমা থেকে পর্যাপ্ত বিমানের ব্যবস্থাও করা হয়েছে।
ব্রাজিল, কলম্বিয়া, ইকুয়েডর সীমান্ত সংলগ্ন লরেটোয় সংক্রমিতের সংখ্যা আড়াই হাজারের কাছাকাছি। মৃত্যু হয়েছে ৯৫ জনের। সংক্রমিত হয়েছেন বহু চিকিৎসক এবং স্বাস্থ্যকর্মীও।

স্বাস্থ্য বিভাগের ডিরেক্টর কার্লোস কালাম্পা ভিডিও কনফারেন্সে জানিয়েছেন, পৃথিবীর ফুসফুস হিসেবে পরিচিত অ্যামাজন বৃষ্টিবনানীতেই এখন অক্সিজেনের আকাল। তাই ইকিতোসে আজ সোমবার থেকে অক্সিজেন প্ল্যান্টের কাজ শুরু হচ্ছে।

প্রত্যন্ত অ্যামাজনের তিকুনা, বিতানিয়া সম্প্রদায়ের মধ্যে করোনা ছড়িয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
জ্বর, সর্দি-কাশির মতো করোনা উপসর্গ রয়েছে বহু লোকের। সূত্রের খবরে জানা গেছে, সেখানে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন পাঁচ জন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী।

আদিবাসীদের অভিযোগ, সরকার করোনা মোকাবিলায় কোনও ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ব্লিনকেনকে উইঘুদের বন্দি শিবির ও নির্যাতন বন্ধের আহ্বান

সম্প্রতি জিনজিয়াংয়ে উইঘুদের প্রতি চীনের অমানবিক আচরণ ও গণহত্যা বলে স্বীকৃতি দিয়েছে ...