শুক্রবার | ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৭ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি | দুপুর ২:২৬
Home / সারাদেশ / মেয়ের কান্না দেখে অঝরে কাঁদলেন গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র

মেয়ের কান্না দেখে অঝরে কাঁদলেন গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র

মোঃ মুজাহিদুল ইসলাম!!
বৈশ্বিক মহামারী নভেল করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) তার বিষাক্ত নীল ছোবলে গ্রাস করে নিচ্ছে পুরো পৃথিবীটাকে। মহামারী এই ভাইরাসের থাবা পড়েছে বাংলাদেশেও। ইতিপূর্বেই বাংলাদেশে মহামারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩২ হাজারেরও বেশি মানুষ আর প্রাণ হারিয়েছেন সাড়ে চারশোর অধিক মানুষ।

মহামারী এই ভাইরাস মোকাবেলায় দেশের রাষ্ট্রপ্রধান থেকে শুরু করে জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, ডাক্তার, স্বাস্থ্য সেবাকর্মী, দেশের সকল প্রশাসন, সাংবাদিক আর স্বেচ্ছাসেবিরা অদৃশ্য করোনার বিরুদ্ধে এক প্রকার যুদ্ধে নেমেছেন।
করোনাযুদ্ধে অনেকেই ঘড়বাড়ি, আপনজন, পরিবার-পরিজন রেখে দেশের মানুষের জানমাল রক্ষায় নিজেদের জীবনের মায়া ছেড়ে দিনরাত এক করে কাজ করে যাচ্ছেন।
এরই ধারাবাহিকতায় দেশের সবচেয়ে বৃহৎ সিটি কর্পোরেশন গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এডভোকেট মোঃ জাহাঙ্গীর আলম করোনাযোদ্ধা হিসেবে সম্মুখযোদ্ধা হয়ে তার নির্বাচনী এলাকার মানুষের জানমাল রক্ষার্থে নিরসলভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, আর এতে করে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মহোদয় আজ প্রায় দুইমাস ধরে থাকছেন না নিজের বাড়িতে।
করোনার ভয়ংকর থাবা থেকে নিজ পরিবার আর আপনজনদের রক্ষার্থে মেয়রের এই দূরে থাকা। কেননা করোনা এমনই এক ভাইরাস যে ভাইরাস অদৃশ্য থেকে আপনজনদেরও আক্রান্ত করতে পারে, আর তাই গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এডভোকেট মোঃ জাহাঙ্গীর আলম করোনাযুদ্ধে সম্মুখযোদ্ধা হয়ে নিজ নির্বাচনী এলাকার জনসাধারণের পাশাপাশি নিজের পরিবারের কথা ভেবে থাকেন না বাড়িতে, কাছে আসেন না আপনজনদের।

গতকাল রাতে একপলকের জন্য নিজের একমাত্র সন্তানকে একটু দেখতে যান মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। কিন্তু বাড়ির গেটে গাড়ী থামিয়ে গাড়ীতে বসেই একপলকের জন্য মেয়েকে দেখেন মেয়র জাহাঙ্গীর আলম।
যাননি একমাত্র মেয়ের সামনাসামনি, একটুও ছুঁয়ে দেখতে পারেননি নিজের কলিজার ধন আদুরে মেয়েকে।
মেয়র বাবাকে প্রায় দুইমাস পর দেখতে পেয়ে একমাত্র কন্যা সন্তান “জারা”ও যেতে পারেনি কাছে, বাবার বুকে জড়িয়ে নিতে পারেনি আদর, স্নেহ, মমতা, ভালোবাসা।
আর এতে করেই জারা ডুকরে কেঁদে উঠে। একমাত্র মেয়ের কান্না দেখে বাবা মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ধরে রাখতে পারেননি চোখের পানি।
গাড়ীতে বসেই মেয়র কাঁদলেন অঝরে।

বাবা মেয়ের এরকম আবেগঘন মুহূর্ত দেখে উপস্থিত সকলের চোখেই ঝড়তে থাকে নোনাজল।
বাবা মেয়েকে আর মেয়ে বাবাকে দূর থেকে দেখে অনবিরত চোখের নোনাজল ফেলতে থাকে।
আঝরে কাঁদলেন মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ও মেয়ে জারা।
বাবা-মেয়ের অঝরে কান্না দেখে কাঁদলেন উপস্থিত সবাই।

পোস্টটি শেয়ার করুন
Share

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বিশ্ব মানবাধিকার দিবসে বাংলাদেশ স্বাস্থ্য এন্ড পরিবেশ মানবাধিকার সাংবাদিক সোসাইটির র‍্যালি

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ স্বাস্থ্য এন্ড পরিবেশ মানবাধিকার ...